সবজিতে বাঁচানো টাকা যাচ্ছে চাল-তেলে

শুক্রবার রাজধানীর মিরপুর, পীরেরবাগ আর কারওয়ান বাজারে দেখা গেছে, খুচরা ও পাইকারিতে মিনিকেট চালের দাম গত ১০ দিনে কেজিতে ১/২ টাকা করে বেড়েছে। একইভাবে বেড়েছে স্বর্ণা ও বিআর-২৮ চালের দামও। অবশ্য নতুন আসা পাইজাম, মিনিকেট ও স্বর্ণা চালের দাম কেজিতে ১/২ টাকা কম পাওয়া যাচ্ছে।

পীরেরবাগে খুচরা দোকান মায়ের দোয়া স্টোরের বিক্রেতা ফেরদৌস মনোয়ার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “মিনিকেটের দাম কেন যে বাড়ল বুঝতে পারলাম না। অবশ্য এবার ধানের দাম অন্যবারের চেয়ে বেশি যাচ্ছে। পুরান ধানের দামও বেশি, নতুন যে আমন এসেছে তার দামও কিছুটা বেশি বলে জানতে পেরেছি।”

তিনি জানান, রশিদের মিনিকেট চালের বস্তা (৫০ কেজি) ২৬৫০ টাকা থেকে বেড়ে এখন ২৭৫০ টাকা হয়েছে। গুটি স্বর্ণা ২১৫০ টাকা থেকে বেড়ে ২২৫০ টাকা হয়েছে। নতুন আমন ধানের পাইজাম বিক্রি হচ্ছে ২৩৫০ টাকা, পুরান পাইজাম চাল ২৪৫০ টাকা।

“সবকিছু মিলিয়ে চালের দাম এখন বাড়তি। সিদ্ধ কাটারি বিক্রি হচ্ছে বস্তা ২৬০০ টাকায়, নাজিরশাইল প্রতিবস্তা এখন ২৭২০ টাকা,” বলেন ফেরদৌস।

কারওয়ান বাজারের রনি রাইস এজেন্সিতে মিনিকেট প্রতি বস্তা ২৬৫০, নাজির ২৭০০, বিআর আঠাশ ২৪০০, পাইজাম ২৩৫০, গুটি স্বর্ণা ২২৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এখানকার বিক্রেতা মনিরুল ইসলাম জানান, গত ১০ দিন ধরেই চালের দাম বস্তায় ৫০ থেকে ৭০ টাকা বাড়তি। কেনা দাম বেশি পড়ায় খুচরায়ও দাম বেড়েছে।

এদিকে গত ১০ দিনে বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম কেজিতে অন্তত পাঁচ টাকা করে বাড়ানো হয়েছে বলে কারওয়ান বাজারের দোকানিরা জানিয়েছেন।

     এই বিভাগের আরও খবর

আমাদের লাইক পেজ